কুষ্টিয়ায় অপচিকিৎসায় প্রসূতি মায়ের মৃত্যুর অভিযোগ বেসকারি স্বাস্থ সেবা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে

ডেস্ক নিউজ , কুষ্টিয়া প্রতিনিধি :

দুই সন্তানের জননী গর্ভবতী তানিয়া খাতুন দালালের খপ্পরে পড়ে কুষ্টিয়ার সদর উপজেলার ইসলামিয়া হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে তানিয়া নামে এক গৃহবধুর মৃত্যু হয়েছে। রোগীর স্বজনদের অভিযোগ অদক্ষ ডাক্তার ও নার্স দিয়ে ভুল অপারেশনের কারণে রোগীর মৃত্যু হয়েছে। ডেলিভারী করানোর সময়ই তার মৃত্যু হয় বলে জানা যায়। তবে বিষয়টি ধামাচামা মৃত অবস্থায় তানিয়া খাতুনকে রাজশাহীতে স্থানান্তরের ব্যবস্থা করে ইসলামিয়া হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টার।
গতকাল (শনিবার) রাত সাড়ে ৮টায় মিরপুর উপজেলার মশানের আব্দুর সাত্তারের ছেলে রেজাউল দালালের মাধ্যমে কুমারখালী থানাধীন বাঁশগ্রাম এলাকার আলী আকবরের স্ত্রী তানিয়াকে সিজার অপারেশন করানোর জন্য ইসলামিয়া হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে নিয়ে আসে। ভর্তি করে রাত ৯টার দিকে ডাঃ আবু সিদ্দিক নামে এক ডাক্তার তানিয়াকে সিজার অপারেশন শুরু করেন। অপারেশন রুমেই তানিয়ার মৃত্যু হয়। রাত সাড়ে ৯মিনিটের সময় তাকে রাজশাহী মেডিকেলে পাঠানোর পরামর্শ দিলে নিহতের স্বামী আলী আকবর তার স্তীর গায়ের তাপাত্রা দেখে সন্দেহ হয়। পওে রাজশাহী না নিয়ে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তানিয়া খাতুনকে মৃত ঘোষনা করে। তানিয়ার মৃত্যু হলেও তার সদ্য ভুমিষ্ঠ সন্তান জীবিত রয়েছে।
নিহতের স্বামী আলী আকবর জানান, ক্লিনিকে ভর্তি হওয়ার পর অবস্থা খারাপ হতে থাকলে তার স্ত্রীকে এক ডাক্তার দিয়ে অপারেশন করান ইসলামিয়া হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের কর্তৃপক্ষ। ডাক্তার আমাদের সাথে কোন কথা বলেন নাই, সনো রিপোর্ট না দেখেই অপারেশন করার পর তার হাতে একটি পুত্র সন্তান দেন। হঠাৎ করে কোথায় থেকে যেন একটি এম্বুলেন্স এসে এবং তার স্ত্রীকে তুলতে থাকে। নিহতের স্বামী জিজ্ঞাসা করলে ইসলামিয়া হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের কর্তৃপক্ষ জানান এখনই তাকে রাজশাহীতে পাঠাতে হবে তার স্ত্রীকে। তার স্ত্রীর শরীরের প্রচন্ড ঠান্ডা অনুভতি হওয়ায় নিহতের স্বামী ইসলামিয়া হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের কর্তৃপক্ষকে জিজ্ঞাসা করলে কর্তৃপক্ষ জানায় তার স্ত্রীকে অজ্ঞান হওয়ার ওষুধ দিয়েছি একটু পরে জ্ঞান ফিরে আসবে এ কথা বলেই তরিঘড়ি ইসলামিয়া হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে কর্তৃপক্ষের লোকজন রোগীকে এম্বুলেন্সে তুলে দেয়। রোগীর স্বজনদের সন্দেহ হলে তারা রোগীকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তৃব্যরত চিকিৎসক তানিয়াকে মৃত ঘোষনা করেন।
এ বিষয় কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের জরুরী বিভাগের ডাক্তার বলেন তানিয়া নামে একজন রোগী আমাদের কাছে আসে। কিন্তু সে অনেক আগেই মারা গেছেন। তারপরেও আমরা ইসিজি করি কিন্তু কোন লাভ হয়নি। তিনি আরও বলেন ভুল অপারেশনের কারণে রক্তক্ষণ হয়ে মৃত্যু হয় প্রসুতির । আজ রবিবার দুপুর ১টায় ময়না তদন্ত শেষে নিহতের লাশ স্বজনদেও কাছে হস্তান্তর করা হয়।
কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ গোলাম মোস্তফা বলেন ইসলামিয়া হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে তানিয়া নামে প্রসুতি রোগী মৃত্যুর ঘটনাটি শুনেছি। ডাক্তার আবু সিদ্দিককে ইসলামিয়া হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টার থেকে আটক করা হয়।এ ঘটনায় কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। মামলা নং: ২।